cheap seahawks jersey cheap apartments in new jersey cheap nba jerseys china wholesale jerseys authentic jerseys for cheap cheap hockey jerseys china cheap jerseys cheap nhl hockey jerseys cheap motels in new jersey jersey for cheap cheap authentic nfl jerseys free shipping cheap hockey jersey cheap youth football jerseys
C

C

প্রোগ্রামিং বা প্রোগ্রামের ধারণা

কোনো এক লেখক বলেছেন, ‘‘তরুলতা সহজেই তরুলতা,পশুপাখি সহজেই পশুপাখি কিন্তু প্রাণপণ চেষ্টা করেই একজন মানুষ প্রকৃত মানুষ’’।একজন মানুষ নিজেকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে অনেক পরিশ্রম করতে হয় এবং অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।বর্তমান যুগ বিজ্ঞানের যুগ। বর্তমানে মানুষ কম্পিউটারের সাহায্যে অনেক হিসাব নিকাশ ও অনেক জটিল সমস্যার সমাধান করছে।কিন্তু কম্পিউটার নিজে থেকে কিছুই করতে পারে না কারন কম্পিউটারের কোন চিন্তা শক্তি নেই।তাই কম্পিউটারের সাহায্যে এই সকল সমস্যা সমাধান করার জন্য কম্পিউটারকে আগে থেকেই নির্দেশনা দিতে হয়।কোন সমস্যা সমাধানের জন্য কম্পিউটারকে যে নির্দেশনা দেওয়া হয় তাকেই আমরা প্রোগ্রাম এবং এই সম্পূর্ণ বিষয়টাকে প্রোগ্রামিং বা কম্পিউটার প্রোগ্রামিং বলে থাকি।

প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ (Language) বা ভাষা

মানুষ একে অন্যের সাথে ভাব বিনিময় ও কাজে কর্মে আদেশ-নির্দেশ প্রদানের জন্য যে সকল ধ্বনি এবং ধ্বনির যে লিখিতরূপ ব্যবহার করে তাকেই ভাষা বা Language বলা হয়।এই লিখিত রূপ প্রকাশের জন্য আমরা কিছু সংকেত এবং নিয়ম কানুন(Rules) অনুসরণ করি। বর্তমানে কম্পিউটার আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং কম্পিউটারের মাধ্যমে আমরা দৈনন্দিন জীবনের অনেক কাজ করে থাকি।এসকল কাজ করার জন্য আমরা কম্পিউটারকে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে থাকি।আর এসকল আদেশ নির্দেশ প্রদান করতে হয় বিশেষভাবে নির্মিত সফটওয়্যারের মাধ্যমে। সুতরাং কম্পিউটারকে আদেশ-নির্দেশ প্রদানের জন্য কম্পিউটার বুঝতে পারে এমন কিছু সংকেত এবং কতিপয় নিয়ম-কানুন ব্যবহার করে প্রোগ্রাম তৈরি করা হয়।প্রোগ্রাম তৈরির জন্য ব্যবহৃত এই সকল নিয়ম-কানুন ও সংকেতগুলোকে একত্রে প্রোগ্রামিং ভাষা বা Programming Language বলে।

একটি কম্পিউটার শত-সহস্র ইলেক্ট্রনিক সুইচ সমন্বয়ে তৈরি যার দুটি অবস্থা “ON” অথবা “OFF” থাকে এবং এদেরকে দুটি সংকেত “1” ও “0” দ্বারা প্রকাশ করা হয়। কম্পিউটারের ভিতরে যাবতীয় কর্মকাণ্ড এই দুটি সংকেত দ্বারা প্রকাশ করা হয়।প্রথম যখন প্রোগ্রামিং করা হয় তখন শুধুমাত্র “0” এবং “1” দ্বারা প্রোগ্রাম লিখতে হতো ।কারণ কম্পিউটার শুধু “0” এবং ”1” চিনতে পারে।আর এই “1” ও “0” দিয়ে লেখা ভাষাকে মেশিন ভাষা (Machine Language)বলে। কম্পিউটারের অভ্যন্তরীণ কর্মকাণ্ড যা বিদ্যুৎ তরঙ্গ দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়,তার সাথে মেশিন ভাষার সরাসরি মিল থাকে।কিন্তু মেশিন ভাষায় প্রোগ্রামিং করা অত্যন্ত জটিল।সামান্য কাজের জন্য প্রোগ্রাম লিখতে প্রচুর সময় লাগতো। যেমন- সামান্য দুটি সংখ্যাকে যোগ করার জন্য এই ভাষায় নিচের লাইনগুলো লিখতে হতো……

0000 0010 1011 1100 1010 (get i)

0000 0010 1111 1100 1000 (add j with i)

0000 0011 0011 1010 1000 (store result in k, k=i+j)

আর তাছাড়া মেশিন ভাষায় এক কম্পিউটারের জন্য লেখা প্রোগ্রাম আরেক কম্পিউটারে চালানো যেতোনা।এ যেন অনেকটা আদিম যুগের ভাষার মত।আদিম যুগে মানুষ ইশারা ইঙ্গিতে মনের ভাব প্রকাশ করতো।কিন্তু পরবর্তীকালে মানুষ নিজের সুবিধার জন্য ভাষার উদ্ভাবন করে।তেমনি কম্পিউটার বিশেষজ্ঞরা কম্পিউটারকে আরো ব্যবহার উপযোগী করার জন্য এবং সীমাবদ্ধতা কাটানোর জন্য এবং প্রোগ্রামিংকে আরো সহজ করার লক্ষ্যে পরবর্তীকালে অর্থসূচক সংকেত গঠন করে নতুন নতুন প্রোগ্রামিং ভাষার উদ্ভাবন করেন।

স্টেইটমেন্ট (Statement)

আমরা যে ভাষায় কথা বলি সেখানে মনের ভাব সম্পূর্ণভাবে প্রকাশ করতে বাক্য বা sentence ব্যবহার করি।ঠিক তেমনিভাবে সি প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ (Language) বা ভাষায় একটি নির্দেশনা কম্পাইলারকে সম্পূর্ণভাবে বোঝাতে স্টেইটমেন্ট ব্যবহার করা হয়। স্টেইটমেন্টের শেষ বোঝাতে সেমিকোলন ব্যবহার করা হয়।

উদাহরণ:

[c]printf(“This is an Example of a Statement.”);[/c]

didim escort didim escort didim escort kemer escort kemer escort kemer escort kuşadası escort kuşadası escort kuşadası escort şile escort şile escort şile escort